দি ফোর্ট অফ টিপু সুলতান

ভেলোরের সিএমসি তে আসলে থানায় যেতে হয় হোটেলের “সি ফর্ম” নিয়ে। সকাল সকাল গেছি প্রায় ১ ঘণ্টা বসিয়ে রেখে তামিল পুলিশ বলল চলে যান রাতে আসবেন। থানার পাশেই দুর্গের মত কিছু একটা আগেই দেখেছি। বাঙালি যে কজন আছি ঘুরতে চলে গেলাম।

দুর্গটার ভাল নাম ফোর্টঅফ টিপু সুলতান। এটা এখানে কেন জানি না। টিপু সুলতানের যত ইতিহাস মহিশুরে। এখানে আটকে রাখার একটা ব্যাপার আছে।

দুর্গের প্রবেশপথে কোন টিকেটের ব্যাপার ও নেই।
মহীশূর শাসন করতেন টিপু সুলতান। ব্রিটিশদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করেছিলেন। তারাই নাম দিয়েছিল শের-ই-মহীশূর (মহীশূরের বাঘ)।

বাংলার মীরজাফরের মতই মহীশুরের মীর সাদিক যে ছিল টিপুর সেনাপতি। সে বিশ্বাঘাতকতা করে টিপুর সাথে। ১৭৯৯ খ্রিস্টাব্দে ৪৬ বছর বয়সে ব্রিটিশ ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানীর সঙ্গে শ্রীরঙ্গপত্তমের যুদ্ধে ইংরেজদের কাছে আত্মসমর্পণ না করে জীবন দিয়েছিলেন টিপু।

পরে তার পরিবারের মানুষজনকে ভেলোরের দূর্গে বন্দী করে রাখে ব্রিটিশ শাসকরা৷


Post a Comment

0 Comments