উত্তরের জনপদ তেঁতুলিয়াও তবে পেল ট্রেন

উত্তরের জনপদ তেঁতুলিয়াও তবে পেল ট্রেন

পঞ্চগড়কে চিনি তেঁতুলিয়াকে চেনার পর। বাংলাদেশের সর্বউত্তরের জনপদ হিসেবে স্বীকৃত এই এলাকাকে পরে আরো ভালবাসার শুরু কাঞ্চনজঙ্গা এ জায়গা থেকে দেখা যায় জেনে।

তেঁতুলিয়া থেকে দুই দিদির বাড়ির দূরত্বও খুব বেশি দূরে না। সে যাই হোক বাড়ি কাছে হোক দূরে হোক সেই দূরত্বে কখনো কেউ প্রতিবেশী কেউবা বিদেশী। কিন্তু দেশের ভেতরেই বাংলাদেশে বিদেশের মতই উত্তরবঙ্গের জেলাগুলো। দারিদ্র্যতার কারণেই বারবার শিরোনামে উঠে আসে এদিকের মানুষগুলো। বাংলাদেশ রাষ্ট্রের ভিতরে আরেকটি রাষ্ট্র ও তার নাগরিককে দেখতে পাই যার প্রধান ছাঁকুনি এই উত্তরের জনপদ।

উন্নয়নের দ্বিতীয় মেয়াদ শেষ হওয়ার আগে উত্তরের জনপদ পঞ্চগড়ের জন্যে ভাল খবর দিল বাংলাদেশ রেল। ঢাকা থেকে পঞ্চগড় ট্রেন সার্ভিস চালু হবে এই ১০ নভেম্বর থেকে। সর্বমোট ২৩ টি স্টেশন ঘুরে যাবে এই ট্রেন। এই দূরত্বে রেল চালু করে বাপের ব্যাটার মত কাজও করে ফেলেছে তারা। এই ‍রুটই স্বীকৃতি পাচ্ছে দেশের সবচেয়ে বেশি দূরত্বের ট্রেন রুট হিসেবে।

৬৩৯ কিলোমিটার দূরত্বের এই পথে দ্রুতযান ট্রেনটি পঞ্চগড় রেলস্টেশন থেকে ঢাকার উদ্দেশে রওনা হবে প্রতিদিন সকাল সাতটা ২০ মিনিটে। ১০ ঘণ্টা ৫০ মিনিট পর ট্রেনটি ঢাকায় পৌঁছাবে সন্ধ্যা ছয়টা ১০ মিনিটে। ঢাকা থেকে দ্রুতযান ছাড়বে প্রতিদিন রাত আটটায় এবং পঞ্চগড় পৌঁছাবে সকাল ছয়টা ৩৫ মিনিটে।

একতা এক্সপ্রেস পঞ্চগড় থেকে ছাড়বে প্রতিদিন রাত নয়টা। ট্রেনটি ঢাকায় পৌঁছাবে পরদিন সকাল আটটা ১০ মিনিটে। ঢাকা থেকে একতা এক্সপ্রেস ছাড়বে প্রতিদিন সকাল ১০টায় এবং পঞ্চগড় পৌঁছাবে রাত পৌনে নয়টায়।

দ্রুতযান ও একতা এক্সপ্রেস ট্রেনের বগি সংখ্যা মোট ১৩টি। প্রায় ১২০০ যাত্রী বহন করতে পারবে এই ট্রেনে। দ্রুতযান ও একতায় প্রতিটি শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত (এসি) বার্থের ভাড়া ১ হাজার ৯৪২ টাকা, এসি চেয়ারের ভাড়া ১ হাজার ৫৩ টাকা, নন এসি বার্থের ভাড়া ১ হাজার ১৪৫ টাকা ও শোভন চেয়ারের ভাড়া ৫৫০ টাকা।

Post a Comment

0 Comments